গ্রাম্য শালিশ :: এটা কি বন্ধ হবে না? সরকারের কাছে এর পক্ষে কি বিবৃতি আছে? জানতে চাই।



ঠিক কি কারণে আজো গ্রাম্য শালিশ চালু আছে তা বোধগম্য নয় আমার। কিছু মানুষকে বাকি মানুষগুলোকে নির্যাতন করার সুযোগ করে দেওয়া ছাড়া আর কি কারণ থাকতে পারে গ্রাম্য শালিশ এর?


আজ খবরে দেখলাম নোয়াখালীতে এক মধ্য বয়স্ক মহিলাকে নির্যাতন করা হয়েছে। তার যা কথিত অপরাধ তা প্রমাণ হওয়ার আগেই তাকে ভরা বাজারে লাঠি দিয়ে পেটানো হলো, চুল কেটে দেওয়া হলো। খবরটা টিভিতে দেখলাম। এখনো কোন অনলাইন পত্রিকায় এসেছে কিনা জানি না। খুঁজে পেলে লিংক দিবো।

মাস কয়েক আগে মে বী রংপুরের বদরগঞ্জে ২ মহিলাকে এভাবেই পেটানো হয়েছিলো।

এই নোংরামী, অত্যাচার কেনো বন্ধ করা হচ্ছে না?

সরকার কি পারে না আইন করে গ্রাম্য শালিশ বন্ধ করতে? বাধা থাকলে তা কোথায়? কিবা এক্সপ্ল্যানাশন থাকতে পারে এই গ্রাম্য শালিশ চালু থাকার ব্যাপারে? জানতে চাই।

থানা-পুলিশ-কোর্ট-কাছারী থাকতে এই ২০১২ সালেও কি গ্রামের মানুষ গুটিকতক মানুষ আর তাদের পোষা সন্ত্রাসীদের হাতে জিম্মি হয়ে থাকবে? তারা থানায় যাওয়ার আগে এই মাতব্বরদের টপকাতে হয়। এটা করতে গেলেও তাদের হুমকির মুখে পড়তে হয়। আশ্চর্য, মানুষ থানায় যেতে পারে না !!!

যদি শালিশ করার অধিকার দেওয়াও হয় তবুও শাস্তি দেবার অধিকার দেওয়ার কোন কারণ থাকতে পারে না। অপরাধ প্রমাণিত হলে মামলা করুক। সেখানে বিচার হোক। তাই বলে এভাবে প্রকাশে নির্যাতন আর কতো দেখতে হবে?

এ ধরণের অরাজগতা তুলে নিতে সরকারের সমস্যা কোথায় বা কেনইবা আজও এটা চালু আছে তার বিবৃতি সরকারের কাছে থেকে শুনতে ইচ্ছা করে। আমার মনে হয়, গ্রামের মানুষদের উচিত একাট্টা হয়ে এসব মাতব্বরদের গ্রাম ছাড়া করা। কিন্তু এই কথাটি বলা যতটা সহজ বাস্তবে করা ততটাই কঠিন। আমি জানি। কিন্তু এভাবে নির্যাতন টিভিতে দেখার পর রীতিমত অসুস্থ ফিল করছি।

শত শত মানুষ দাঁড়িয়ে দেখলো। আর তাছাড়া করবেই বা কি। বাধা দিবে? বাধা দিলে কাল ওদের বাড়ির মেয়ে হাওয়া হয়ে যাবে, যুবক ভাইটিকে পাওয়া যাবে কোন ডোবার মধ্যে। ওদের বিরুদ্ধে মামলা করলেও কোন লাভ হবে না। উল্টো মামলা কেনো করলো তার জন্য আরো দুটো লাশ পড়বে। কিন্তু সাধারণ মানুষ গুলো অপরাধ করুক বা না করুক তাদের শাস্তি হবে, নির্যাতন হবে, বেত্রাঘাত হবে, চুল কাটা হবে, হাত-পা ভাঙ্গা হবে ...

তাই সাধারণ মানুষদের কিছু করার আছে বলে আমি মনে করি না। সরকারেরই উচিত গ্রাম্য শালিশ এর ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়ার।

Related Contents:

Recommended Recommends

Comments

Contact Us